আজ ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

৩য় ধাপে টাংগাইলের ৫টি পৌর নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যারা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলে ৩য় ধাপে ৫টি পৌরসভার নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি। এই ৫টি পৌরসভার রয়েছে ৫৪টি ওয়ার্ড। এর মধ্যে শুধু টাঙ্গাইল পৌরসভায় ১৮টি; বাকি পৌরসভাগুলোতে ৯টি করে ওয়ার্ড রয়েছে।

এই ৫টি পৌরসভায় ১৫ জন মেয়র, ৮০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ২৩৫ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বৈধতা পেয়েছে।

এর আগে এই ৫টি পৌরসভায় ১৫ জন মেয়র, ৮০ জন সংরক্ষিত ও ২৪৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর মনোনয়ন পত্র জমা দেন।

তাদের মধ্যে টাঙ্গাইলের ২ জন, মির্জাপুরের ১ জন, মধুপুরের ২ জন, ভূঞাপুরের ২ জন ও সখীপুরের ১ জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

১৮টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত টাঙ্গাইল পৌরসভায়। এবারের পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন এবং সবারই মনোনয়ন পত্র বৈধতা পায়। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত সিরাজুল হক আলমগীর, বিএনপি মনোনীত মাহমুদুল হক সানু ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত মো. আব্দুল কাদের রয়েছেন। এছাড়া এই পৌরসভার ১৮টি ওয়ার্ডে ৩৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ১০০ জন সাধারণ কাউন্সিলর বৈধতা পেয়েছেন।

এদের মধ্যে ১৫ ও ১৬ নং ওয়ার্ডের দুইজন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়ন ঋণ খেলাপীর জন্য বাতিল হয়।

এই পৌরসভার মোট ভোটার ১ লক্ষ ২৪ হাজার ৪২৫ জন; এর মধ্যে ৬০ হাজার ৩৩৪ জন পুরুষ ও ৬৪ হাজার ৯১ জন মহিলা ভোটার।

মির্জাপুর পৌরসভায় রয়েছে ৯টি ওয়ার্ড। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন এবং সবার মনোনয়ন পত্র বৈধতা পায়। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত সালমা আক্তার, বিএনপি মনোনীত মো. শফিকুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শহিদুর রহমান। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩০ জন সাধারণ কাউন্সিলর বৈধতা পেয়েছেন। এই পৌরসভায় ১ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

এই পৌরসভার মোট ভোটার ২১ হাজার ৬৬৯ জন; এর মধ্যে ১০ হাজার ১৯১ জন পুরুষ ও ১১ হাজার ৪৭৮ জন মহিলা ভোটার।

ভূঞাপুর পৌরসভায় রয়েছে ৯টি ওয়ার্ড। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৪ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন এবং সবার মনোনয়ন পত্র বৈধতা পায়। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মাসুদুল হক মাসুদ, বিএনপি মনোনীত মো. জাহাঙ্গীর হোসেন। এই পৌরসভায় মেয়র পদে ২ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। এরা হলো, মো. আমিরুল ইসলাম তালুকদার ও মো. আব্দুল সাত্তার। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১১ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর বৈধতা পেয়েছেন। এই পৌরসভায় ২ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

এই পৌরসভার মোট ভোটার ২১ হাজার ৭২৯ জন; এর মধ্যে ১০ হাজার ৭৮৯ জন পুরুষ ও ১০ হাজার ৯৪০ জন মহিলা ভোটার।

৯টি ওয়ার্ড নিয়ে মধুপুর পৌরসভা গঠিত। এই পৌরসভা নির্বাচনে ২ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন এবং সবার মনোনয়ন পত্রই বৈধতা পায়। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. সিদ্দীক হোসেন, ও বিএনপি মনোনীত মো. আ. লতিফ পান্না। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১৪ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৪১ জন সাধারণ কাউন্সিলর বৈধতা পেয়েছেন। এই পৌরসভায় ২ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

এই পৌরসভার মোট ভোটার ৪১ হাজার ৯৩৯ জন; এর মধ্যে ২০ হাজার ৭৫২ জন পুরুষ ও ২১ হাজার ১৮৭ জন মহিলা ভোটার।

৯টি ওয়ার্ড নিয়ে সখীপুর পৌরসভা গঠিত। এই পৌরসভা নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন এবং সবার মনোনয়ন পত্র বৈধতা পায়। এরা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবু হানিফ আজাদ, বিএনপি মনোনীত মো. নাছির উদ্দিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সানোয়ার হোসেন সজীব। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ৩১ জন সাধারণ কাউন্সিলর বৈধতা পেয়েছেন। এই পৌরসভায় ১ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

এই পৌরসভার মোট ভোটার ২২ হাজার ৩৩৭ জন; এর মধ্যে ১০ হাজার ৭৬২ জন পুরুষ ও ১১ হাজার ৫৭৫ জন মহিলা ভোটার।

মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে জেলা সিনিয়র নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান তথ্যগুলো নিশ্চিত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap