আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

আমি আলহাজ কাজী আব্দুল মোতালেব, পিতা-কাজী মোজাফফর আলী, গ্রাম-জয়নাতলী,উপজেলা-মধুপুর,জেলা-টাঙ্গাইল। আমি ৬ বছর সুুনামের সাথে উপজেলার বৃহত্তর আউশনারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছি এবং ৩ বছর যাবৎ নবগঠিত মহিষমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে আসছি। উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি এবং মহিষমারা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতিসহ অনেক প্রতিষ্ঠানে সভাপতি হিসাবে নিষ্ঠারসাথে দায়িত্ব পালন করে আসছি। কিন্তু গত ১৫ জুলাই’২০২০ তারিখে বিজয়ের আলো টিভি এবং ১৬ জুলাই ঘাটাইলডটকম এবং দৈনিক৭১ডটকমসহ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ‘মধুপুরে চেয়ারম্যানের ছোট ভাই ইয়াবা সম্রাট সন্ত্রাসী সাখাওয়াত গ্রেফতার’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রচারিত হয়েছে। প্রতিবেদনটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। আমার দির্ঘদিনের সুনাম নষ্ট করার জন্য একটি কুচক্রী মহল মিথ্যা ও ভুল তথ্য দিয়ে প্রতিবেদনটি করিয়েছে।

আমি বৃহত্তর আউশনারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থাকাকালে আমার মোটরসাইকেল চালক আশ্রা গ্রামের জুঙুর ছেলে মহি উদ্দিন আমার নাম করে নানা অপরাধের সাথে জড়িয়ে পরে। আমার অগোচরে মহির চাকরীর প্রলোবনে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা আত্বসাৎ‌‌ আশ্রা ট্রাক শ্রমিক অফিসের নামে অবৈধ চাঁদা আদায় করে আত্বসাৎ‌‌,আশ্রা কমিমিউনিটি ক্লিনিকের দায়িত্ব পালনকালে সরকারি ওষুধ চুরি,স্ত্রীকে দিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নাম করে আশ্রা মসজিদের টাকা আত্বসাৎ‌‌-সহ নানা অপকর্ম করতে থাকে। আমি জানতে পেরে তাকে (মহিরকে) আমার কাছ থেকে সরিয়ে দেই এবং ভবিষ্যতে এমন অপরাধ না করার জন্য করাভাবে বলে দেই। যার ফলশ্রতিতে সে পরবর্তীতে আমার নামে মিথ্যা অপপ্রচারে নেমে পরে।

সে কথিত সাংবাদিকের মাধ্যমে আমার বিরোদ্ধে উক্ত মিথ্যা প্রতিবেদনটি করিয়েছে। সাখাওয়াত আমার আপন ভাই নয়,তাছাড়া সে আমার ছত্রছায়ায় মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী করার প্রশ্নই উঠেনা। সেইসাথে গারোবাজারে পুলিশ ফাঁড়ির নাম করে টাকা তুলে আত্বসাৎ‌‌ করার তথ্যও মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি প্রচারিত প্রতিবেদনটির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে আমার কথা যাচাই করে সত্য এবং সঠিক তথ্য তুলে ধরার জন্য প্রকৃত সাংবাদিকদের প্রতি আহ্ববান জানাচ্ছি।

আলহাজ কাজী আব্দুল মোতালেব
চেয়ারম্যান
মহিষমারা ইউনিয়ন পরিষদ
মধুপুর,টাঙ্গাইল।

One response to “প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ”

  1. MD.Hazrat Ali says:

    অন্যায় করা আর অন্যায় পশ্রয় দেওয়া সমান অপরাধ। মধুপুর মহিষমারা ইউনিয়নে অনেক অন্যায়কারী সন্মানের সহিত ঘুরে বেড়াচ্ছে ।ন্যায় নীতির কোন প্রকার ছোঁয়া নেই বললেই চলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ
Share via
Copy link
Powered by Social Snap