আজ ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মধুপুর শহর থেকে গ্রামের বাজারগুলোতে মাস্কের ব্যবহার নেই

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কঠোর লকডাউনের সময় সীমা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি অমান্যও বেড়েছে। টাঙ্গাইলের মধুপুর শহর থেকে গ্রামের বাজারগুলোতে মাস্কের ব্যবহার নেই। স্বাস্থ্যবিধি আছে বিষয়টি কারও মাথায়ও নেই।

মধুপুরে বিভিন্ন এলাকাঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। সরেজমিন মধুপুরের কুড়ালিয়া, চাপড়ী বাজার, পিরোজপুর, জলছত্র, পচিশমাইল, রক্তিপাড়া, গাঙ্গাইর ও তোরাপ বাজার ঘুরে দেখা যায় অনেকের মুখেই মাস্ক নেই। স্বাস্থ্যবিধির কোনটাই তাঁরা আমলে নেননি। যে যার মতো চলছেন। কথা বলছেন। এটা ওটা খাচ্ছেন।

তোরাপ বাজারে কথা হয় ৪/৫ জনের সঙ্গে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তাঁরা বললেন, ‘অন্যায় করলে শাস্তি দেয় সরকার। এই দুনিয়া যে বানাইছে তাঁর বিরুদ্ধাচরণ করলে শাস্তি পাওন নাগবো না। দেহুন সাংবাদিক ভাই, এসির মধ্যে থাইকা করোনায় মরে কেন? আমরা তো এসিতে থাকি না। আমরা গ্রামেতো বালাই আছি।’

বেসরকারি বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘জীবনই বাঁচে না। ঘরে বন্দী থেকে মরার চেয়ে খেয়ে–পরে মরা ভালো। তাই বাজারে বেচাকেনা করি।’

ব্যবসায়ী মতিয়ার রহমান বলেন, ‘যে লকডাউন চলছে এইটায় কোনো উপকারই হবে না। লকডাউন দেওন লাগব কারফিউয়ের মতো। বের হলেই শাস্তি। বাংলাদেশের মানুষ ১৫ দিনে না খাইয়া মরব না।’

মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীমা ইয়াসমিন জানান, ‘শহর ও গ্রামে ঘুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে লোকজনকে জরিমানা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ