আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মধুপুরে স্কুল শিক্ষকের পুকুরে বিষ প্রয়োগে লক্ষাধিক টাকার মাছ মেরে ফেলেছে দুষ্কৃতকারীরা

মধুপুর সংবাদদাতাঃ টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার কুড়ালিয়া গ্রামের প্রাক্তন শিক্ষক মোঃ শহিদুজ্জামান এর পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে লক্ষাধিক টাকার মাছ মেরে ফেলেছে কতিপয় দুস্কৃতকারীরা।

অভিযোগকারী মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রক্তন সিনিয়র শিক্ষক মো: শহিদুজ্জামান দীর্ঘ ৩২ বছর যাবৎ সততার সাথে শিক্ষকতা করে বর্তমানে অবসরে আছেন। তিনি তার সততা দিয়ে অসংখ্য অফিসার তৈরি করেছেন যারা আজ বিভিন্ন দপ্তরে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন আমি ৩২ বছর যাবত অনেক শিক্ষার্থীকে শিক্ষার আলো জ্বালিয়েছি কিন্তু আজ আমি নিজেই অন্ধকারে আছি। তিনি আরও বলেন কয়েকজন দুষ্কৃতকারী তার জায়গা জমি বেদখল সহ নানাভাবে হয়রানি করে আসছে। বর্তমানে খুবই মানবেতর জীবনযাপন করছেন বলে তিনি জানান। ঘটনার বিবরণে জানা যায় কয়েক দিন আগে পারিবারিক কলহের জেরে তার ভাতিজা আসাদুজ্জামান (আরএস) তার আরেক ভাতিজা আতিকুজ্জামান ওটনের একটি ছাগল বিষ খাওয়ায়ে মেরে ফেলে। আর এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিবাদী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং বাদী আতিকুজ্জামানকে রামদা দিয়ে মাথায় আঘাত করলে বাদী তা হাত দিয়ে প্রতিহত করতে গেলে তার হাতের অনেকাংশ কেটে যায়। এই ঘটনায় মধুপুর থানায় একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করা হয় এবং এই অভিযোগ পত্র তুলে নেওয়ার জন্য বিবাদী বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই জের হিসেবে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ মারার ঘটনা ঘটতে পারে এমনটাই ধারনা করছেন এলাকাবাসী। অভিযোগকারী শহিদুজ্জামান বলেন পুকুরটি বেশ কিছু দিন আগে তার ভাতিজা আতিকুজ্জামান (ওটন)কে মাছ চাষের জন্য দায়িত্ব দেন। গত ১৯ জুলাই দিবাগত রাতে কে বা কাহারা উক্ত পুকুরে মাছ মারার উদ্দেশ্যে বিষ প্রয়োগ করলে পুকুরের সমস্ত মাছ মরে ভেসে ওঠে।

প্রত্যেক্ষদর্শীরা জানান- এই ভাবে পুকুরের মাছ বিষ দিয়ে মারা ঠিক হয়নি। যারাই এই জঘন্য কাজটি করেছে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করারও দাবী জানান তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ