আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ঘাটাইলে হাতেনাতে ধরা খেলো মানিক চোরা

ঘাটাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে উপজেলা পরিষদ মসজিদের পাশে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সামনে থেকে মানিক নামক মোটরসাইকেল চোরকে আটক করেছে। ১৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে মোটরসাইকেল চুরি করার সময় হাতেনাতে তাঁকে আটক করে ঘাটাইল থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

আটককৃত মোটরসাইকেল চোরের নাম মানিক। তার গ্রামের বাড়ী পার্শ্ববর্তী উপজেলার জলছত্র এলাকায়। তার বাবার নাম শামছুল হক। সে মোটরসাইকেল চুরিচক্রের সাথে জড়িত বলে পুলিশের নিকট প্রাথমিক স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

ঘাটাইল পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ফিল্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট আসাদুজ্জামান সেলিম জানান, ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার বিকাল ছয়টার সময় কে বা কাহারা আমার মোটরসাইকেলটি অফিসের সামনে থেকে চুরি করার চেষ্টা করে। চোর মোটরসাইকেলটির সবগুলো লক ভাঙ্গতে সক্ষম না হওয়ায় চুরি করতে ব্যর্থ হয়। আমরা সিসি ক্যামেরা থেকে চোরের চেহারা শনাক্ত করতে সক্ষম হই। পরে ১৪ সেপ্টেম্বর আবারও একই যায়গায় একজন যুবকে উদ্দেশ্যহীন ঘুরাঘুরি করতে দেখা যায়। তিনি  আরও জানান, ১৪ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার যখন ওই ছেলে আবারও একই স্থানে মোটরসাইকেল চুরি করতে আসে, তখন আমরা অফিসের ভিতর থেকে সিসি ক্যামেরায় চেহারা দেখে বুঝতে পারি যে, ওই একই ব্যক্তি আবারও এসেছে। পরে আমরা তাৎক্ষণিক অফিস রুম থেকে বের হয়ে চোরকে হাতেনাতে আটক করলে সে চুরি করতে আসার কথা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করে। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক রবিন দত্ত জানান, গত ১৪ সেপ্টেম্বর আমার অফিসে কর্মরত অ্যাসিস্ট্যান্ট আসাদুজ্জামান সেলিমের মোটরসাইকেলটি চুরির চেষ্টা করা হয়। আমরা আজকে সিসি ক্যামেরা পর্যবেক্ষণ করে চোরের চেহারা শনাক্ত করতে সক্ষম হই।  কাকতালীয়ভাবে সিসি ক্যামেরায় দেখি ওই একই ছেলে আবারও আমাদের অফিসের সামনে ঠিক একই সময়ে বিক্ষিপ্ত ঘোরাঘুরি করছে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আমরা তাঁকে আটক করে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা ইয়াসমিনকে খবর দেই। তিনি তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে এসে থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে যান।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত অনেকেই সে সময় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা ইয়াসমিনের নিকট মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান। ভুক্তভোগী অনেকেই তখন ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এদিকে ঘাটাইলে নিপ্রোজেএমআই ওষুধ কোম্পানিতে কর্মরত শাহাদৎ হোসেন সুমন  জানান, গত দুই মাস আগে আমার একটি মোটরসাইকেল ঘাটাইল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চুরি হয়। সেই ঘটনার ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে সেসময় আমি ঘাটাইল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করি। আজকে আটক হওয়া চোরের চেহারার সাথে ওই ভিডিও ফুটেজে প্রাপ্ত চোরের চেহারার হুবুহু মিল খুঁজে পাওয়ায়, আমি আটককৃতর বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করছি।

ঘাটাইল থানার ওসি মোঃ আজহারুল ইসলাম সরকার পি.পি.এম বলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধার সময় ঘাটাইল পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সামন থেকে মানিক নামক একজন মোটরসাইকেল চোরকে আটক করা হয়েছে। নিয়মিত মামলা ছাড়াও অন্য কেউ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলে সে বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ বিভাগের আরো সংবাদ